Sorry, you need to enable JavaScript to visit this website.
Search
Not a member? Register here
Share this Article
X
 Combating Morning Sickness

সকালের অসুস্থতা প্রতিরোধ করা

(0 reviews)

গর্ভাবস্থায় সর্বাধিক সাধারণ সমস্যা যা সমস্ত হবু মায়েদের ওপর প্রভাব ফেলে তা হল সকালের অসুস্থতা। সাধারণত এটি গর্ভধারণের 4র্থ এবং 6ষ্ঠ সপ্তাহে শুরু হয় এবং 14 থেকে 16তম সপ্তাহ পর্যন্ত স্থায়ী হয়। কিছু মায়েরা তাঁদের সমস্ত গর্ভাবস্থায় সকালের অসুস্থতা অনুভব করেন। এর অন্তর্ভুক্ত রয়েছে মৃদু গা গোলানো ভাব এবং বমি।

Tuesday, December 12th, 2017

এটি কেন ঘটে?

সকালের অসুস্থতার কারণ হিসেবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে শরীরের অভ্যন্তরে ঘন ঘন হরমোনের পরিবর্তনকে দায়ী করা যায়। যাইহোক, একটি প্রকৃত কারণ এখনো প্রতিষ্ঠিত করা বাকি রয়েছে। গর্ভাবস্থায় গা গোলানো এবং বমি ভাবের সম্ভাব্য কারণগুলির মধ্যে কয়েকটি বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই হরমোন ক্ষরণের সাথে সম্পর্কযুক্ত।

এইচসিজি হরমোনের কারণে গা গোলায়: গর্ভাবস্থায় শরীরে উচ্চ মাত্রায় হিউম্যান ক্রায়োনিক গোনাডোট্রপিন (এইচসিজি) হরমোন ক্ষরিত হয়। এটি মাতৃত্বকালীন ডিম্বাশয়কে ইস্ট্রোজেন নির্গমন করতে উদ্দীপিত করে, যার কারণে গা গোলানো ভাব হয়। 

প্রোজেস্টেরন পেশিগুলিকে প্রসারিত করে:গর্ভাবস্থায় প্রোজেস্টেরনের মাত্রা বৃদ্ধি শিশুর বৃদ্ধি এবং জন্ম সহজ করার জন্য জরায়ুর পেশিগুলিকে প্রসারিত করে। যদিও, এটি পেট এবং অন্ত্রের পেশিগুলিকেও শিথিল করতে পারে, যা অধিক মাত্রায় গ্যাস্ট্রিক অ্যাসিডের কারনে গ্যাস্ট্রো-ইসোফাজেল রিফ্লাক্স (বুকজ্বালা সৃষ্টি করা পেটের অ্যাসিডের ওগরানি) ঘটানোর দিকে অগ্রসর হতে পারে। রক্তে শর্করার একটি নিম্ন মাত্রা (হাইপোগ্লাইসেমিয়া) যা প্লাসেন্টার শক্তি নিঃসরণের কারণে ঘটে, তাও গা গোলানো ভাবের সম্ভাব্য কারন হিসেবে দেখা হয়, যদিও এটি এখনো নিশ্চিত নয়।    

অতি সংবেদনশীল গন্ধ অনুভব: বেশিরভাগ হবু মায়েদের ক্ষেত্রে এটি হল সর্বাধিক সাধারণ অস্বস্তি। গন্ধের প্রতি উচ্চমাত্রায় সংবেদনশীলতা পাচনব্যবস্থাকে অধিক উদ্দীপিত করতে পারে এবং পেটের অ্যাসিডের ক্ষরণ প্ররোচিত করে যার কারণেও গা গোলানো ভাব হতে পারে।  

বিলিরুবিনের মাত্রা বৃদ্ধি: বিলিরুবিনের (পাকস্থলীতে পাওয়া একটি উৎসেচক) মাত্রা বৃদ্ধিও বমিভাবের কারণ হতে পারে। 

আমি কিভাবে এটি প্রতিরোধ করতে পারি?

সমস্ত সমাধানগুলি বমিভাবের লক্ষণগুলি একটি নির্দিষ্ট মাত্রা পর্যন্ত কমানোর দিকে লক্ষ্য রাখে।

কার্বোহাইড্রেট সমৃদ্ধ খাবার: সকালের প্রথম দিকে আপনি বিস্কুট, টোস্ট ইত্যাদি কার্বোহাইড্রেট সমৃদ্ধ খাবার অবশ্যই খান। ছোট ছোট কার্বোহাইড্রেট সমৃদ্ধ খাবার খাওয়া - ফল ও সবজি যাতে প্রচুর পরিমাণে জলের উপাদান থাকে, যেমন টমেটো, আঙ্গুর, তরমুজ, পালং, এবং লেটুসও সহায়ক হয়। এই মিশ্রণে লেবু এবং আদাও অন্তর্ভুক্ত করুন যাতে এটি আরও বেশি সাহায্য করে।

খালি পেটে থাকা এড়িয়ে চলুন: এর কারণে পেটের তরলগুলির পরিমাণ বেড়ে যায় এবং বমিভাব ডেকে আনতে পারে। যদি বমিভাব বেশি থাকে, তাহলে চর্বি সমৃদ্ধ খাবার, যেমন সুস্বাদু এবং বিশেষ গন্ধযুক্ত খাবার এড়িয়ে চলুন।

তরল পান করা বাড়ান: যেহেতু বমি করা আপনার শরীরের তরলের মাত্রা কমিয়ে দেয়, তাই আপনি যথেষ্ট পরিমাণে জল এবং তরল যেমন তাজা ফল ও সবজির রস, ঘোল, ও ডাবের জলের সাথে এই পরিস্থিতি পরিপূরণ করা নিশ্চিত করুন। 

যদি দীর্ঘদিন ধরে আপনার বমিভাব নিয়ন্ত্রণের বাইরে থাকে, তাহলে আপনার চিকিৎসকের সাথে আলোচনা করুন। কিন্তু মনে রাখবেন, এখানে চিন্তার কোন কারণ নেই। গর্ভাবস্থায় দেখা দেওয়া লক্ষণগুলির মধ্যে এটি একটি সর্বাপেক্ষা সাধারণ লক্ষণ এবং সমস্ত গর্ভবতী মায়েদের মধ্যে 50-70% এই পর্যায়ের মধ্যে দিয়ে যান। 

English | Tamil | Hindi | Telugu | Bengali | Marathi

Read more

Join My First 1000 Days Club

It all starts here. Expert nutrition advice for you and your baby along the first 1000 days.

  • Learn about nutrition at your own paceLearn about nutrition at your own pace
  • toolTry our tailored practical tools
  • Enjoy member only benefits and offersEnjoy member only benefits

Let's start this!

Related Content
Article Reviews

0 reviews

Still haven't found
what you are looking for?

Try our new smart question engine. We'll always have something for you.